default-image

বয়স মাত্র চার। বরিশালে গিয়েছি বেড়াতে। ওখানে আমার নানুর বাড়ি। এক খালামণি তখন স্কুলে পড়ে। আমাকে তার সঙ্গে স্কুলে নিয়ে গিয়ে বলেন, ‘তুমি দাঁড়াও, আমি দোকান থেকে চকলেট কিনে দিই।’ অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকলাম। ক্লাসের ঘণ্টা পড়ে গেল। একজন টিচার আমাকে ক্লাসরুমের সামনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে নাম জিজ্ঞেস করলেন। আমি ভয়ে বাসার দিকে এমন দৌড় দিলাম যে ঘাসের ওপর রাস্তা না দেখেই ড্রেনে পড়ে গেলাম। অনেক কষ্টে ড্রেন থেকে উঠে জুতা খুঁজতে লাগলাম, তা–ও আবার ড্রেনের ভেতর হাত ঢুকিয়ে। সেটা আমার প্রিয় জুতা ছিল। তারপর দৌড়ে বাসায় ঢুকলাম। ছোট মামা দেখেই বলল, ‘ওরে বাবা, ভূত।’ আয়নায় নিজেকে চিনতেই পারলাম না। মনে হলো একটা কালো ভূত দাঁড়িয়ে আছে।

বিজ্ঞাপন
কিশোর আলো থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন