default-image
  • আতিক স্কুল থেকে ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট নিয়ে বাড়ি ফিরেছে।

    আতিকের বাবা: রেজাল্ট কী আতিক?

    আতিক: বাবা, আমার এক ফ্রেন্ড B পেয়েছে, ওর বাবা শুনে Beautiful বলেছে। 

    বাবা: বুঝলাম, তোর রেজাল্ট কী?

    আতিক: আমার আরেক ফ্রেন্ড D পেয়েছে, ওর বাবা ওকে Diamond বলেছে। 

    বাবা: বুঝলাম, এবার তোরটা বল।

    আতিক: আমার আরেক বন্ধু A পেয়েছে, ওর বাবা Amazing

    বলেছে।

    বাবা: (রাগান্বিত স্বরে) তোর রেজাল্ট কী?

    আতিক: বাবা, তুমি আমার রেজাল্ট শুনলে Fantastic বলবে।

বিজ্ঞাপন
  • বস: এই, তুমি আবার অফিসে এসেছ কেন? তোমার চাকরি তো গতকালই চলে গেছে!

    চাকরিচ্যুত কর্মচারী: জানি স্যার। সে জন্যই আমি আজ ওই শূন্যপদে যোগ দিতে এসেছি!

default-image
  • দৌড় প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে রুস্তম। বন্ধুদের নিয়ে রেস্তোরাঁয় খেতে গেল সে। এদিকে রেস্তোরাঁর দারোয়ান তাঁদের প্রবেশপথে আটকে দিল। 

    দারোয়ান: দুঃখিত স্যার, আপনি হাফপ্যান্ট পরে এসেছেন। হাফপ্যান্ট পরে আমাদের রেস্তোরাঁয় প্রবেশ নিষেধ।

    রুস্তম: তুমি আমাকে আটকে দিচ্ছ? তুমি জানো আমি কে? আমি বিখ্যাত দৌড়বিদ রুস্তম।

    দারোয়ান: তাহলে তো ভালোই হলো। এক দৌড়ে বাসা থেকে ফুলপ্যান্টটা পরে আসুন!

বিজ্ঞাপন
  • আসিফ ব্যাংকে গেল।

    আসিফ: আমি একটা জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট খুলতে চাই।

    ব্যাংক কর্মকর্তা: কার সঙ্গে জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট খুলতে চান?

    আসিফ: যার অ্যাকাউন্টে সবচেয়ে বেশি টাকা!

কিশোর আলো থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন