বিজ্ঞাপন

কিন্তু আসলেই কি এত কিছু ঠিকঠাকভাবে চলবে এই নিয়মে? উঁহু...ঠিক ধরেছ। এই প্রশ্নের উত্তর ‘না’। দিনের আলোতে কাজ আর রাতে বিশ্রাম-এতই অভ্যস্ত মানুষ, যা চলে আসছে প্রাগৈতিহাসিক কাল থেকেই। মানুষের জিন এই নিয়মে অভ্যস্ত। এর ব্যত্যয় ঘটলে পৃথিবীর অনেক স্থানের মানুষ তাদের দৈনন্দিন কাজ ঠিকভাবে করতে পারবে না। কৃষিকাজ, মাছ ধরাসহ আরও নানা রকম গুরুত্বপূর্ণ কাজে সূর্যের আলোর প্রয়োজন হয়। সূর্যের আলো থাকা অবস্থায় ঘুমিয়ে থাকলে তারা তো এ কাজগুলো সঠিকভাবে করতে পারবে না।

সব মানুষের টানা আট ঘণ্টা ঘুমের বিরতিতে আপাতদৃষ্টিতে প্রকৃতিতে দূষণ না ঘটলেও প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের ব্যতিক্রম ঘটায় অনেক বিপর্যয় ঘটবে। ঝামেলা হবে বিদ্যুৎশক্তি নিয়েও। ঘুম থেকে উঠে সবাই একসঙ্গে বিদ্যুৎ ব্যবহার শুরু করলে বেশি চাপ সহ্য করতে হবে উৎপাদন কারখানাগুলোকে। ফলে বেশি চাপ সইতে না পেরে বিপর্যস্ত হবে বিদ্যুৎ–ব্যবস্থা।

অন্যদিকে রাতে ঘুমানো বাদ দিয়ে কাজ করলে মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়বে। মানুষের স্মরণশক্তি কমে যাবে, রক্তচাপ বাড়বে, মানুষ হতাশায় ভুগবে।

তাই একই সময়ে সবাই ঘুমালে পৃথিবীর নিয়মকানুন যে খুব ভালো চলবে না, সেটা এবার বুঝতেই পারছ।

ইনিশ ডট কম অবলম্বনে

জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন