default-image

আমি তখন অনেক ছোট। ক্লাস ওয়ান বা টুতে পড়ি। একদিন কোথা থেকে যেন একটা কুকুরছানা নিয়ে এলেন বাবা। এর রং ছিল কালো আর সাদা। আমরা সবাই খুব ভালোবাসতাম কুকুরছানাটাকে। আমাদেরও খুব ভালোবাসত চারপেয়ে প্রাণিটা। আমরা যখন সকালে পড়তে যেতাম, আমাদের সঙ্গে যেত ও। কোনো কোনো দিন এগিয়ে দিয়ে আসত আবার কোনো দিন বসে থাকত আমাদের জন্য। আমরা স্কুলে গেলে ও যেতে চাইত সঙ্গে। কিন্তু মা আর দাদা যেতে দিতেন না। একদিন দাদা ওকে একটা মোটা পাটের দড়ি দিয়ে বেঁধে রেখেছিলেন। কিন্তু খুব বুদ্ধিমান ছিল কুকুরছানাটা। দাঁত দিয়ে দড়ি কামড়ে কেটে ফেলেছিল। মা আর দাদা তো অবাক! আমরা অবশ্য অবাক হইনি, জানতাম ও খুব বুদ্ধিমান। আমরা ওকে মাছ, মাংস, মাছের কাঁটা খাওয়াতাম। বিস্কুট খেতেও খুব ভালোবাসত ও।

একদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি বাড়ির কোথাও নেই আমাদের কুকুরছানাটা। বাইরে গিয়ে দেখি ও আর নেই। মরে পড়ে আছে। কীভাবে মারা গেল আমাদের প্রিয় ছোট্ট কুকুরছানাটা, তা আজও রহস্যই রয়ে গেছে।

বিজ্ঞাপন
কিশোর আলো থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন