default-image

একটা ছেলের রাগ ছিল খুব বেশি। তবে সে তার বাবার কথা শুনত। বাবাকে সে নিজেই বলল, ‘বাবা, আমি কী করে রাগ কমাতে পারি, বলে দাও না!’ বাবা বললেন, ‘যখনই তোমার মেজাজ খারাপ হবে, অমনি তুমি একটা পেরেক এই কাঠের খুঁটিতে গাঁথবে।’ ছেলেটা প্রথম দিন ২৩টা পেরেক গাঁথল। এর পরের দিন ১২টা। সে দেখল, পেরেক পোঁতার চেয়ে রাগ দমন করা সহজ। আস্তে আস্তে সে রাগ করা কমিয়ে দিল। এমন দিন এল, একটাও পেরেক তাকে পুঁততে হলো না। সে খুশি। বাবাকে বলল, ‘বাবা, আমাকে আর পেরেক পুঁততে হয় না। আমি রাগ করিই না।’

বাবা বললেন, ‘যাও, হাতুড়ির উল্টো দিকের ফাঁকটা দিয়ে চাপ দিয়ে দিয়ে পেরেকগুলো উপড়ে ফেলো।’ ছেলেটা তা–ও করল। বাবা বললেন, ‘দেখো, পেরেকগুলো বাঁকা হয়ে গেছে, আর কাঠের খুঁটির গায়ে কত দাগ। আমরা যখন রেগে যাই, তখন আমাদের মনটা বেঁকে যায়। আর যার ওপরে রাগ দেখাই, তার অন্তরটায় দাগ হয়ে যায়।’

বিজ্ঞাপন

রাগ করে কাউকে কিছু বলবে না। রাগের মাথায় কোনো কাজ করবে না। রেগে গেলে আগে রাগটাকে পড়ে যেতে দেবে। তারপর সিদ্ধান্ত নেবে। রাগের মাথায় কোনো ভালো কাজ করা যায় না।

ঈদ কেমন গেল? করোনাকালের ঈদ। আগের মতোন নয়। নিউ নরমাল। মুজিব বর্ষের আগস্ট মাস। শোকের মাস। বঙ্গবন্ধুর প্রতি আমাদের গভীর শ্রদ্ধা, ভালোবাসা।

তোমরা এখন থেকে নিয়মিত ‘কিশোর আলো’ পাবে। অনলাইনেও ‘কিশোর আলো’ পড়তে থাকো।

(আগস্ট ২০২০ সংখ্যায় প্রকাশিত সম্পাদকীয়)

মন্তব্য পড়ুন 0