বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এতবড় পেয়ারা বাগানের কথা শুনে অনেকেরই হয়ত সেখানে যাওয়ার কথা ভাবতেই পারো। সেটি যদি ভেবে থাকো, তাহলে শোন, বরিশাল থেকে পেয়ারা বাগানে যাওয়ার বেশ কয়েকটি পথ রয়েছে। শহর থেকে ঝালকাঠির বিনয়কাঠী হয়ে নবগ্রাম পৌঁছাতে হবে। সেখান থেকে যাওয়া যাবে ট্রলারে। আবার বরিশাল থেকে বাসে চেপে বানারীপাড়া উপজেলার দাসের হাট নেমে, টেম্পু অথবা মাহেন্দ্র নিয়েও যাওয়া যাবে পেয়ারার রাজ্যে। আর বাসে চেপে স্বরূপকাঠি পৌঁছে ট্রলার নিয়ে তো যাওয়া যায়ই। তবে পেয়ারা বাগানের সৌন্দর্য যদি তুমি তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করতে চাও তবে তোমাকে যেতে বলবো ইঞ্জিনচালিত নৌকা দিয়েই। নবগ্রাম অথবা স্বরূপকাঠি বন্দর থেকে ট্রলারে উঠলেই চারদিকের অপরূপ প্রকৃতি হাতছানি দিয়ে ডাকা শুরু করবে তোমায়। একটু এগুলেই খালের দুই পাড়ে দেখা মেলবে নানা জাতের ফলদ আর বনজ গাছের নার্সারী। কুড়িয়ানার দিকে যতই এগোতে থাকবে ততই খালগুলো সরু হতে থাকবে। এভাবে আধা ঘন্টা চলার পর খালের মধ্যেই ভাসতে দেখবে তুমি ছোট-বড় নানান আকারের পেয়ারা। তোমাকে পাশ কাটিয়ে যাবে পেয়ারা ভর্তি ছোট নৌকা আর ট্রলার। আথিতেয়তার নিদর্শন হিসেবে অনেকেই তোমার দিকে ছুড়ে দিবে পেয়ারা। পাশে থাকা ছোট ছোট শিশুরাও পেয়ারা দিয়ে জানাবে তোমাকে অভিবাদন।

default-image

একদম কাছ থেকে পেয়ারা বাগান দেখতে হলে কুড়িয়ানা পৌঁছে তোমাকে নিতে হবে ছোট নৌকা। তাতে চেপে ঢুকতে হবে মূল বাগানে। তবে বাগানে ঢোকার আগে অবশ্যই বাগান মালিকের অনুমতি নিয়ে নিতে হবে। আর একবার বাগানে ঢুকতে পারলে তারপর তোমাকে আর পায় কে! ডানে-বামে সামনে-পিছে এত পেয়ারা দেখে নিজেকে যদি কাঠবিড়ালি ভাবতে চাও, কে মানা করে?

ফিচার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন