বিজ্ঞাপন
default-image
২. এবার কাগজটির নিচের অর্ধেক অংশের ৩ ভাগের ১ ভাগ অংশ চিত্রের মতো ওপরের দিকে ভাঁজ করো।
default-image
৩. নিচের ত্রিভুজাকার অংশ দুটি তির চিহ্ন বরাবর ভাঁজ করো। তাতে ৪ নম্বর চিত্রের মতো পাবে।
default-image
৪. এবার দুই পাশের ডটকৃত অংশ দুটি তির চিহ্ন বরাবর ভাঁজ করো।
default-image
৫. পুনরায় দুই পাশের ডটকৃত ত্রিভুজাকার অংশ দুটি তির চিহ্ন বরাবর নিচের দিকে ভাঁজ করো।
default-image
৬. এ অংশে এসে নিচে তিন পাশে তিনটি কাগুজে স্তর পাবে। এবার ওপরের অংশটি ডটলাইন বরাবর নিচের দিকে ভাঁজ করো। ভাঁজ করতে গিয়ে ওপরের ত্রিভুজাকার অংশটি নিচের কাগুজে স্তরের ভেতর গুঁজে দাও এবং ভালোভাবে চাপ দিয়ে মিশিয়ে নাও।
default-image
৭. এই তো তুমি নিজেই বানিয়ে ফেললে একটি চমৎকার চিঠির খাম। এবার লিখে ফেলো একখান জম্পেশ চিঠি। লেখা শেষে খামে পুরে পাঠিয়ে দাও তা। পরীক্ষার খাতায় তো ‘দশে দশ’ পেতে অনেক চিঠিই লিখলে! এবার সত্যি সত্যিই লিখে ফেলো তোমার বন্ধুর কাছে আর চমকে দাও তাকে!

আর হ্যাঁ, চিঠি খামে পুরে খামের ওপরের ভাঁজকৃত অংশে আইকা বা আঠা লাগাও বা স্বচ্ছ স্কচটেপ দিয়ে মজবুত করে জুড়ে দাও। তাতে চিঠি হারানোর ভয় থাকবে না।

কিশোর আলো থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন