১৯ ফেব্রুয়ারি বাংলা একাডেমি চত্বরে বইমেলায় গ্রাফিক নভেলটির মোড়ক উন্মোচন করেছেন শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও সাহিত্যিক আনিসুল হক। মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলা ইতিহাসের নিকৃষ্টতম কাজ ছিল। নতুন প্রজন্মের কাছে ইতিহাসের এ মহানায়ককে তুলে ধরা প্রয়োজন।

মুহম্মদ জাফর ইকবাল আরও বলেন, দেশে প্রজন্মের পর প্রজন্ম বেড়ে উঠেছে। কিন্তু তারা জানত না বঙ্গবন্ধু কে এবং বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের জন্য কী করেছিলেন। এর চেয়ে বড় অপরাধ আর কী হতে পারে! পৃথিবীর কোথাও ইতিহাসের মহানায়কদের নিয়ে এত বড় অপরাধ ঘটেনি।

সাহিত্যিক আনিসুল হক বলেন, বঙ্গবন্ধু কীভাবে পরিশ্রম করলেন, কীভাবে পাকিস্তান থেকে ভাষা আন্দোলন হলো, ভাষা আন্দোলন থেকে জাতীয়তাবাদী আন্দোলন হলো—এগুলো তরুণ প্রজন্মকে জানতে হবে।

আনিসুল হক আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা, আমার দেখা নয়াচীন গ্রন্থগুলো প্রতিটি বাঙালির অবশ্যপাঠ্য হওয়া উচিত। কিন্তু শিশুদের জন্য কী হবে? এই চিন্তা মাথায় রেখে সিআরআই, রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিকরা যে উদ্যোগ নিয়েছেন, তা অবশ্যই প্রশংসার দাবিদার। শুধু তা–ই নয়, এ কাজের মাধ্যমে তাঁরা জাতির কৃতজ্ঞতাভাজন হলেন বলে আমি মনে করি।

‘মুক্তির পথে’ মুজিব গ্রাফিক নভেলের শেষ পর্ব। এখানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বন্দিজীবনের কথা বর্ণনা হয়েছে। জাতির মুক্তি আন্দোলনে ১৮ মাস বন্দী। আর কত দিন বন্দী থাকতে হবে মুজিবকে? পশ্চিম পাকিস্তানি শাসকদের মিথ্যা অপবাদ, জেল-জুলুমের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে বাঙালির অধিকার আদায়ের আন্দোলন এগিয়ে নেওয়ার গল্প জানা যাবে এই পর্বে।

সিআরআইয়ের জনপ্রিয় প্রকাশনা গ্রাফিক নভেল ‘মুজিব’ পাওয়া যাচ্ছে বইমেলায় প্রতিষ্ঠানটির ৭৩৫-৭৩৬ নম্বর স্টলে। এ ছাড়া বইটি মিলবে ‘বাতিঘর’ প্রকাশনীর স্টলে।

সিআরআইয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সিআরআইয়ে ২৩৫ ও ২৩৬ নম্বর স্টলে একসঙ্গে ১০টি খণ্ডের মূল্য রাখা হয়েছে ৯০০ টাকা। আলাদা করে প্রতিটি খণ্ড ১০০ টাকা। কিন্তু ছাত্রদের জন্য (স্টুডেন্ট আইডি সরবরাহ করতে হবে) ১০টি খণ্ডের দাম রাখা হয়েছে ৭৫০ টাকা।